টেকহাবস
আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন (জিওলোকেশন)

সত্যিই কি আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন (জিওলোকেশন) বের করা সম্ভব?

আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন বেড় করা নিয়ে অনেকের মনেই কৌতূহল রয়েছে জানি। আর এই কৌতূহল থাকাটাও স্বাভাবিক, যেখানে সেলফোন নাম্বার থেকে সেলফোন ট্র্যাক করা যায়, ফোনের বর্তমান লোকেশন সম্পর্কে জানা যায়, ঠিক আইপি অ্যাড্রেস থেকেও ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর লোকেশন পাওয়া যেতে পারে — এরকম ধারণা করাটা স্বাভাবিক। সত্যি কথা বলতে কম্পিউটার নেটওয়ার্কে আইপি অ্যাড্রেস কখনোই জিওলোকেশন চিত্রিত করেনা। কিন্তু তাত্ত্বিকভাবে দেখতে গেলে, হ্যাঁ, আইপি অ্যাড্রেস থেকে জিওলোকেশন পাওয়া সম্ভব, কিন্তু সেই লোকেশন কতোটুকু সঠিক? বা আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন বেড় করা কিভাবে সম্ভব হয়, এ সকল বিষয় বর্ণিত করেই এই আর্টিকেলটি রচনা করা।

আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন (জিওলোকেশন)

সেলফোন নাম্বার থেকে লোকেশন খুঁজে বেড় করা আর আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন বেড় করা দুইটি সম্পূর্ণ আলাদা ব্যাপার। সেলফোনে জিপিএস থাকে, তাছাড়া সেলফোন বর্তমানে কোন এলাকার টাওয়ারের সাথে কানেক্টেড রয়েছে সেলফোন অপারেটর’রা সেই তথ্য খুব ভালো করেই জানে (সেলফোন কিভাবে ট্র্যাকিং করা হয়, বিস্তারিত এখানে দেখুন!)। কিন্তু আইপি অ্যাড্রেস আলাদা বিষয়, দুনিয়াতে লাখো ইন্টারনেট সার্ভিস প্রভাইডার রয়েছে এখন কার কাছ থেকে ব্যবহারকারী কানেকশন নিয়ে ইন্টারনেট ব্যবহার করছে, সেই আইএসপি’র লোকেশন কোথায়, ইউজার লোকেশন কোথায় এগুলো তথ্য কিভাবে পাওয়া সম্ভব হবে?

আসলে আইপি অ্যাড্রেস জিওলোকেশন সিস্টেম সম্পূর্ণ কাজ করে ডাটাবেজের উপর ভিত্তি করে। অনেক বড় বড় ডাটাবেজ রয়েছে, যেখানে লাখো কোটি আইপি অ্যাড্রেসের সম্পর্কে নানান তথ্য সংরক্ষিত থাকে। অনেক ইন্টারনেট সার্ভিস প্রভাইডার কোম্পানি নিজেরায় এরকম ডাটাবেজ তৈরি করতে সাহায্য করে। কিন্তু এখানে একটি বিষয় পরিস্কার করে দিতে চাই, মুভিতে দেখানো আইপি জিওলোকেশন সিস্টেম অনেকটায় ফেক। কেননা এই ডাটাবেজ গুলোতে বেশিরভাগ সময় আইএসপির প্রভাইড করা তথ্যই স্টোরড থাকে। মানে আপনি কেবল আইএসপির নাম, আইএসপির জিওলোকেশন, বা আইএসপি সংক্রান্ত তথ্য গুলো পেতে পারবেন, কিন্তু সেখানে কোন ইউজার ডিটেইলস থাকে না। ঐ আইপি অ্যাড্রেসটি কোন ইউজার ব্যবহার করছে এরকম কোন তথ্য থাকে না।

তাছাড়া বিশেষ করে আজকের দিনে বেশিরভাগ আইএসপি ডাইন্যামিক আইপি অ্যাড্রেস প্রদান করে, মানে আপনি যখন ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন না, সেই সময় ঐ আইপি অ্যাড্রেস অন্য কোন ইউজারকে দিয়ে দেওয়া হয়। ফলে কোন আইপি অ্যাড্রেস কোন ডিভাইজে ব্যবহার করা হচ্ছে, কখন কে সেই আইপি অ্যাড্রেসটির মালিক ছিল এ তথ্য কেবল ঐ ইন্টারনেট সার্ভিস প্রভাইডারের কাছেই মজুদ থাকে। তো বুঝতেই পাড়ছেন, ব্যাপারটা মোটেও সহজ নয়। কিন্তু আরো অনেক ডাটাবেজ রয়েছে যেগুলোতে আরো নির্দিষ্ট তথ্য থাকে, কিন্তু সেই ডাটাবেজ গুলো পাবলিক আক্সেস করতে পারেনা, বিশেষ করে বড় বড় কোম্পানিরা সেই ডাটাবেজ গুলোকে কাজে লাগিয়ে থাকে। কিন্তু তারপরেও রিয়াল টাইম আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন বেড় করা কখনোই সম্ভব নয়, তবে হ্যাঁ, অবশ্যই অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গুলো পেয়ে যাবেন, অন্তত দেশের নাম, শহরের নাম, কোন কোম্পানির ইন্টারনেট ব্যবহার করছে ইত্যাদি তথ্য পেয়ে যাবেন।

আইপি জিওলোকেশনের ব্যবহার

আইপি জিওলোকেশন ডাটাবেজ গুলো থেকে ইউজারের বর্ণনা বা রিয়াল টাইম কারো লোকেশন বেড় না করতে পারলেও এই ডাটাবেজের কিন্তু আরো অনেক কাজ রয়েছে। বিশেষ করে যারা ওয়েবসাইট নিয়ন্ত্রণ করে তাদের জন্য এরকম ডাটাবেজ অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। আপনার সাইটে কোন দেশ থেকে ভিজিটর আসছে, তাদের লোকেশন কোথায়, এবং যেখান থেকে বেশি ভিজিটর পাচ্ছেন তাদের চাহিদা অনুসারে কন্টেন্ট তৈরি বা অ্যাড শো করানোর কাজে আইপি জিওলোকেশন ডাটাবেজ ব্যবহার করা যেতে পারে। এখন অবশ্যই বর্তমানে ডাটাবেজ হাতে নিয়ে বা নিজের সিস্টেম তৈরি করে ভিজিটর জিওলোকেশন বেড় করতে হয় না, কেননা গুগল বা এরকম আরো কোম্পানি পাবলিক সেবা দিয়ে থাকে, যাদের সেবা গ্রহণ করার মাধ্যমে আপনি ভিজিটর জিওলোকেশন পেয়ে যেতে পাড়বেন।

স্প্যাম মেইল ট্রেস করার জন্যও আইপি জিওলোকেশন ডাটাবেজ ব্যবহার করা যেতে পারে, মেইল থেকে আইপি অ্যাড্রেস নিয়ে সহজেই বুঝতে পাড়বেন কোন দেশ মেইল গুলো পাঠানো হচ্ছে। এখন যদি কথা বলি সরকারি কোন এজেন্সি নিয়ে তাহলে তারা আইপি জিওলোকেশন থেকে প্রথমে কোন আইপি অ্যাড্রেস থেকে ধারণা গ্রহণ করে, তারপরে ঐ আইএসপির সাথে সরাসরি কন্টাক্ট করে আইপি অ্যাড্রেসটির ডিটেইলস কালেক্ট করে। যতোক্ষণ আপনি আইএসপির সাথে সরাসরি যোগাযোগ না করবেন কখনই সঠিক ইউজার লোকেশন বা ইউজার তথ্য হাসিল করতে পাড়বেন না।

আরো পড়ুন:  ওয়ার্ডপ্রেস গীকঃ পর্ব ১; ওয়ার্ডপ্রেস পরিচিতি (বেসিক ১) [ফ্রী কোর্স!]

আইপি জিওলোকেশনের কমতি

আগেই বলেছি, আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন বা জিওলোকেশন ডাটাবেজ কখনোই হুবহু সঠিক হয় না এবং আপনাকে ইউজারের আসল লোকেশন বেড় করতে সাহায্য করবে না। তবে বছরের পর বছর ধরে জিওলোকেশন ডাটাবেজ অনেক উন্নতি লাভ করেছে, অনেক নতুন নতুন তথ্য যুক্ত করা হচ্ছে, কিন্তু নির্দিষ্ট কোন আইপির ইউজার ইনফরমেশন শুধু আইএসপির কাছেই রয়েছে।

  • অনেক আইপি অ্যাড্রেস ভুল ঠিকানার সাথে যুক্ত করা থাকে; যেমন ভুল শহরের নাম, ভুল জিপ কোড, বা ভুল মেট্রোপলিটন এরিয়া। হয়তো শুধু আইএসপি বা দেশের নাম ঠিক থাকে, কিন্তু এই তথ্য নিয়ে নির্দিষ্ট কাজে তেমন সাহায্য পাওয়া যাবে না।
  • অনেক ডাটাবেজে অনেক আইপি অ্যাড্রেস শুধু দেশের নাম বা বড় কোন শহরের নামের সাথে ট্যাগ করা থাকে, যেখান থেকে ভালো ধারণা পাওয়ার সম্ভবনা অনেক কমে যায়।
  • অনেক আইপি অ্যাড্রেস রয়েছে যেগুলো কোন ডাটাবেজের সাথেই যুক্ত নেই, ফলে সেগুলোর কোন তথ্যই খুঁজে পাওয়া যাবে না। আপনি যদি না জানতে পারেন ঐ আইপি অ্যাড্রেসটির আইএসপি কে, সেক্ষেত্রে কোন প্রকারের তথ্য খুঁজে বেড় করা প্রায় অসম্ভবে পরিণত হতে পারে।

হুইজ ডাটাবেজ থেকে আইপি জিওলোকেশন

ইন্টারনেটে যতো গুলো ডোমেইন এবং আইপি অ্যাড্রেস কোন ইউজারের নামে রেজিস্টার করা হয় তার ডাটাবেজ সাধারত হুইজ ডাটাবেজে (WHOIS) থাকে। যদিও হুইজ ডাটাবেজ থেকে আইপি জিওলোকেশন পাওয়া যায় না, কিন্তু আইপি বা ডোমেইনটি কে বা কোন প্রতিষ্ঠানের নামে রেজিস্টারড রয়েছে তার বিস্তারিত তথ্য গুলো পাওয়া যায়, অনেক সময় ইউজারের কন্টাক্ট নাম্বার বা ইমেইল অ্যাড্রেস পর্যন্ত পাওয়া যায়। কিন্তু এই ডাটাবেজেও ফেক তথ্য প্রদান করা যেতে পারে, তাছাড়া প্রত্যেকটি আইপি অ্যাড্রেস বা একটি একটি করে আইপির বর্ণনা থাকেনা, আইপি রেঞ্জ বা সাবনেট হিসেবে ডাটাবেজ তৈরি করা হয়।

যদি কোন কোম্পানির নামে আইপি অ্যাড্রেস বা আইপি রেঞ্জ রেজিস্টারড হয়ে থাকে, সেক্ষেত্রে হতে পারে ঐ আইপি রেঞ্জটি আলাদা আলাদা অফিস বা আরো সাব কোম্পানির মধ্যে ছরিয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। অনেক গুরুত্বপূর্ণ তদন্তের সময় অনেক ছোট তথ্যও অনেক বড় কাজে লেগে যেতে পারে, যদিও এভাবেও আপনি সঠিক ইউজার লোকেশন পাবেন না, কিন্তু তারপরেও কিছু না পাওয়ার চাইতে অন্তত সামান্য কিছু পাওয়াও ভালো। তবে ডোমেইন নামের ক্ষেত্রে ইউজার ডিটেইলস পাবলিকভাবে পাওয়া যায়, যদি সেই ইউজার হুইজ গার্ড ব্যবহার না করে থাকে।

জিওলোকেশন ডাটাবেজ গুলো কোথায় খুঁজে পাবো?

অনেক জিওলোকেশন ডাটাবেজ রয়েছে, এদের মধ্যে কিছু পাবলিকভাবে আক্সেস করা যায় আবার অনেক গুলোর পাবলিক আক্সেস নেই। গুগলে সার্চ করলে অনেক ডাটাবেজ পেয়ে যাবেন, এদের মধ্যে http://geobytes.com এবং http://www.ip2location.com/ অনেক জনপ্রিয় জিওলোকেশন প্রভাইডার। তাছাড়াও শতশত ওয়েবসাইট রয়েছে যাদের ডাটাবেজ থেকে একই আইপি অ্যাড্রেস সম্পর্কে কিছু আলাদা আলাদা তথ্য পেতে পারেন।

স্ক্যাইহুক (Skyhook) নামের একটি কোম্পানি রয়েছে, যারা নিজেরা অনেক উন্নত ডাটাবেজ তৈরি করছে। এরা জিপিএস সিস্টেম ব্যবহার করে হোম রাউটার লোকেশন ডাটাবেজে যুক্ত করে রাখে, এতে ইউজারের রিয়াল টাইম লোকেশন বা শহর, জিপ কোড, স্ট্রিট অ্যাড্রেস এগুলো পাওয়া যেতে পারে। যাই হোক, স্ক্যাইহুক ডাটাবেজ পাবলিক আক্সেস করতে পারেনা।


আশা করা যায়, আর্টিকেলটি থেকে আইপি অ্যাড্রেস লোকেশন বেড় করার সম্পর্কে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গুলো জানতে পারলেন। আইপি অ্যাড্রেস থেকে লোকেশন পাওয়া যেতে পারে, কিন্তু সেটা ততোটা সঠিক হয় না যে আপনাকে ইউজার পর্যন্ত নিয়ে যাবে। ইউজার বেড় করতে হলে অবশ্যই আইএসপির সাথে সরাসরি যোগাযোগ থাকতেই হবে।

ইমেজ ক্রেডিটঃ By EFKS Via Shutterstock

তাহমিদ বোরহান

প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

34 comments

টেক নিউজ!

সবার আগে সকল সর্বশেষ প্রকাশিত টেক নিউজ গুলো চেক করুণ! স্মার্টফোন/গ্যাজেট রিলিজ, ইন্টারনেট নিউজ, টেক দুনিয়ার সবকিছুর সাথে থাকুন সর্বদা আপডেটেড!

সোশ্যাল মিডিয়া

লজ্জা পাবেন না, সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে টেকহাবসের সাথে যুক্ত হয়ে সকল আপডেট গুলো সবার আগে পান!